• কেন জার্সি খুলে দর্শকদের দেখাতে গেলেন মেসি।

    214791 113 - কেন জার্সি খুলে দর্শকদের দেখাতে গেলেন মেসি।

    কেন জার্সি খুলে দর্শকদের দেখাতে গেলেন মেসি।

    রোবরাব রাতের ‘এল ক্লাসিকো’ সব অর্থেই সার্থক! আক্রমণ, পাল্টা-আক্রমণ। গোল-পাল্টা গোল। লিওনেল মেসির মুখ থেকে রক্ত ঝরল। মেজাজ হারালেন ফুটবলাররা। রেফারি বের করলেন লাল কার্ড। দিনান্তে বার্সেলোনা ৩-২ হারাল রিয়াল মাদ্রিদকে। তার থেকেও বড় কথা ‘মেসি-ম্যাজিক’-এ ম্লান ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। রিয়ালের ঘরের মাঠে এসে ‘ওস্তাদি দেখিয়ে’ গেলেন বার্সেলোনার মহাতারকা। দু-দুটি গোল করলেন মেসি। জয়সূচক গোলটিও এলো তার পা থেকেই। তার পরই টাচলাইনের ধারে দাঁড়িয়ে মেসির সেই ঐতিহাসিক উদযাপন। জার্সি খুলে তা দেখালেন রিয়াল দর্শকদের। স্যান্টিয়াগো বার্নাব্যু তখন স্তব্ধ। বার্সেলোনার জার্সিতে রোববারই পাঁচশো গোলও হয়ে গেল আর্জেন্টাইন নায়কের। ‘এল ক্লাসিকো’ জিতে লা লিগা-য় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দৌড়ে রিয়ালের সঙ্গে ভালোভাবে রয়ে গেল বার্সা। ৩৩ ম্যাচে বার্সেলোনার সংগ্রহ ৭৫ পয়েন্ট। ৩২ ম্যাচ থেকে রিয়ালের ঝুলিতেও ৭৫ পয়েন্ট।
    প্রথমে ক্যাসেমিরোর গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। ২৮ মিনিটের সেই গোল পাঁচ মিনিটের মধ্যেই শোধ করে দেন মেসি। ৭৩ মিনিটে ইভান রাকিটিচের গোলে এগিয়ে যায় ক্যাটালান ক্লাব। ৭৬ মিনিটে সের্জিও র্যামোস লাল কার্ড দেখেন। নিন্দুকেরা বলছেন, ওখানেই ম্যাচটা হেরে যায় রিয়াল। কিন্তু জিনেদিন জিদানের রিয়াল এত দ্রুত হার মানতে রাজি ছিল না। ৮৬ মিনিটে হামেস রদরিগেজ ২-২ করে ফেলেন। ৯২ মিনিটে মেসির সেই গোল। গোলের পরেই সাইডলাইনের ধারে ছুটে গেলেন মেসি। জার্সি খুলে ফেললেন। জার্সির পিছন দিক তুলে দেখালেন স্যান্টিয়াগো বার্নাব্যু-তে উপস্থিত দর্শকদের। জার্সির পিছনেই যে জ্বলজ্বল করে লেখা মেসি। তার মুখ তখন ফেটে পড়ছে রাগে।
    রিয়ালের ঘরের মাঠে খেলা ছিল। প্রায় ৮০ হাজার দর্শক এসেছিলেন মাঠে। রেফারির বাঁশি বাজার পর থেকেই মেসিকে বিদ্রুপ করতে থাকেন উপস্থিত দর্শকরা। এর মধ্যেই রিয়ালের মার্সেলোর কনুইয়ের গুঁতোয় মুখ ফাটে বার্সার বর্শা মেসির। তবুও দমিয়ে রাখা যায়নি মেসিকে। শেষ সময় দিলেন ‘মাস্টারস্ট্রোক’। তার পরেই রিয়ালের জ্বালা আরো বাড়িয়ে দিলেন এলএম ১০। দর্শকদের ভালো করে দেখালেন নিজের জার্সি। হয়তো বলার চেষ্টা করলেন, ‘এই তো আমি মেসি। এটাই আমার জার্সি।’
    জার্সি খুলে অবশ্য হলুদ কার্ড দেখেন মেসি।