• মানব সেবায় নিরবে-নিভৃতে কাজ করে যাচ্ছেন একজন শামীম আহম্মেদ।

    FB IMG 1518430203791 - মানব সেবায় নিরবে-নিভৃতে  কাজ করে যাচ্ছেন একজন শামীম আহম্মেদ।

    পজিটিভ ডেস্কঃ

    গতকাল হঠাৎ করে হাজির হলাম মানব সেবায় নিরবে-নিভৃতে কাজ করে যাওয়া আমাদের সবার প্রিয় মুখ মিস্টভাষী, সদালাপী, অতিথিপরায়ন, সদা হাস্যোজ্জ্বল ব্যাংকার শামীম আহম্মেদ (শামীম ভাই)। যিনি রাস্তাঘাট, বাসস্টেশন, ট্রেন স্টেশন, লঞ্চস্টেশনসহ বিভিন্ন প্লাট ফরমে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা আমাদের সবার কাছে অবহেলিত, অবাঞ্ছিত, মানুষগুলোকে পরম মমতা দিয়ে, ভালোবাসা দিয়ে, সময় দিয়ে নিজের টাকা-পয়সা খরচ করে সবকিছু বিলিয়ে দিয়ে সুস্থ করে তুলছেন। এমন একটি মানুষের সঙ্গে সরাসরি সাক্ষাৎ না হলে বুঝতেই পারতাম না বাংলাদেশে এমন সুন্দর নিঃস্বার্থ, পবিত্র ও পরাপকারি মানুষ এখনও আছে।FB IMG 1518430253339 - মানব সেবায় নিরবে-নিভৃতে  কাজ করে যাচ্ছেন একজন শামীম আহম্মেদ।

    সাংবাদপত্র ও বিভিন্ন মিডিয়ায় কাজ করার সুবাদে সমাজে অনেক বড় বড় রাজনৈতিক দলের মন্ত্রী, এমপি, সিনেমা ও নাট্যজগতে অভিনয় করা নায়ক-নায়িকা, কবি-সাহিত্যিক, কলামিস্ট, জার্নালিস্ট, প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ও বিশিষ্টজনদের সঙ্গে মেলামেশা ও চা-পানের সুযোগ হয়েছে। কিন্তু ফুটপাতে দাঁড়িয়ে শামীম ভাইয়ের হৃদ্যতাপূণ্ চা-অাপ্যায়নের যে স্বাদ গতকাল পেয়েছি সেটা সত্যিই অতুলনীয়। সেই সঙ্গে নিজেকে অত্যন্ত গবিৃত ও ধন্যমনে করছি এমন একজন মানবিক মানুষের সঙ্গে কিছুটা সময় কাটাতে পারে।FB IMG 1518430259400 300x222 - মানব সেবায় নিরবে-নিভৃতে  কাজ করে যাচ্ছেন একজন শামীম আহম্মেদ।

    এই সমাজ ও রাষ্ট্রে মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিমখানার নামে টাকা ‍চাঁদাবাজি করার মানুষের অভাব নেই। এরা যতোটা না মানবিক কাজে চাঁদা উঠাচ্ছে তারচেয়ে অনেক বেশি করছে নিজেদের আখের গোছানোর নামে। কিন্তু টাকার অভাবে চিকিৎসা নিতে না পারা অযত্নে-অবহেলায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মানুষগুলোর জন্য কেউ নেই। অনেক সময় মানসিক ভারসাম্যহীন অনেক উলঙ্গ মানুষের সামনে পড়ে আমাদের বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যেও পড়তে হয়। অনেকে আবার ডাস্টবিনের খাবার কুঁড়িয়ে খায়, গ্রীষ্ম-বর্ষা, শীতে অনেক কষ্ট করে অমানবিক জীবন পার করছে। যা দেখেও আমাদের রাজনীতিবিদ, সমাজসেবক বা দায়িত্বপ্রাপ্ত লোকজন দেখেও না দেখার ভান করেছে, দায় এড়িয়ে যাচ্ছে, তাদের জন্য কোন কিছু করার কোনো তাগিদ অনুভব করছে না। সেখানে অতি সাধারণ মানুষ হয়েও অসাধারন কাজ করে সক্ষমতার পরিচয় দিয়েছেন তিনি।

    সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার মাধ্যমে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল গোষ্ঠী ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে যখন দেখতে পাই এক চামচ খিচুরি দেয়ার নামে ১০-১৫ জনের ছবি উঠানোর প্রতিযোগিতা, কিংবা একপিছ নিম্নমানের শাড়ি, লুঙ্গি, জাকাত দেয়ার নামে, অথবা কুলখানিতে একবেলা খাওয়ানোর নামে নিজেকে এই সমাজে অন্যতম ধনী ব্যক্তি ও দানবীর হিসেবে চিহ্নেত করতে গিয়ে অনেক সাধারণ মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। এটা আসলে গরীব মানুষের সাহায্য-সহযোগিতার নামে উপহাস ও বিদ্রূপ করার শামিল। তেমনি এক দেশে, সমাজে মাসিক বেতনে চাকুরি করা একজন ব্যাংকারের নিরবে-নিবৃত্তে যে কত বড় সামাজিক দায়িত্ব পালন করছে সেটা সত্যিই আমাদের সকলের জন্য অনুকরনীয়, অনুসরনীয়।FB IMG 1518430259400 1 300x222 - মানব সেবায় নিরবে-নিভৃতে  কাজ করে যাচ্ছেন একজন শামীম আহম্মেদ।

    ‘মানুষ মানুষের জন্য’ এই কথাটি শামীম ভাই তার কাজের মাধ্যমে প্রমান করে দিয়েছেন। তবে ১৬ কোটি মানুষ অধ্যৃষিত এই গরীব দেশে অগনিত মানসিক রোগী আছে। একা শামীম ভাইয়ের পক্ষে সমাধান করা সম্ভব নয়। তাছাড়া মানসিক ভারসাম্যহীন মানুষগুলোকে পূণাঙ্গ চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্য তিনি একটি ‘মানসিক হাসপাতাল’ খোলার উদ্যোগ নিয়েছেন। যা একজন চাকুরীজীবি শামীম ভাইয়ের কাছে প্রায় অসম্ভব। তাই আমি আমার সকল বন্ধু-বান্ধব, রাজনৈতিক নেতা, সমাজের বিত্তভান মানুষ, বিভিন্ন মত ও পেশার কাছে সকলের কাছে অনুরোধ আপনারা যে যা পারেন শামীম ভাইকে সাহায্য-সহযোগিতা করে শামীম ভাইয়ের দীঘৃদিনের লালিত স্বপ্ন ‘মানসিক হাসপাতাল’ নির্মাণে অংশগ্রহণ করে মানব সেবায় দেশ, সমাজ, মানুষের ও নিজের বিবেকের প্রতি কিছুটা হলেও সুবিচার করবেন।

    (পোস্টটিতে লাইক নয়, কমেন্টস করুন এবং সবাই শেয়ার করে মানবিক কাজে অংশগ্রহণ করুন।