• হরতাল উপেক্ষা করে বিজয় নগরে প্রাণি সম্পদ মন্ত্রীর হাসপাতাল উদ্ভোধন।

    pic - হরতাল উপেক্ষা করে বিজয় নগরে প্রাণি সম্পদ মন্ত্রীর হাসপাতাল উদ্ভোধন।

    বিজয়নগর পজিটিভ অনলাইন প্রতিনিধি ঃ

    আজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলা প্রাণিসম্পদ হাসপাতাল উদ্বোধন করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাড. ছায়েদুল হক।সকাল থেকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর অবস্হানে হরতাল উপেক্ষা তিনি বিজয়নগর পৌছাঁন। আজ রোববার বেলা পৌনে ১টার দিকে তিনি হাসপাতালটি উদ্বোধন করেন। পরে প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার কক্ষে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
    মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী বলেন, বিশ্বায়নের যুগে আমরা পিছিয়ে পড়তে চাই না। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।
    এসময় মন্ত্রী সুষ্ঠুভাবে হাসপাতাল উদ্বোধন করতে পারায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের প্রশংসা করেন ও তাদের ধন্যবাদ জানান। মতবিনিময় সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মহাপরিচাল ডা. আইনুল হক, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আক্তার উন নেছা শিউলি।

    এদিকে মন্ত্রীর অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠন উত্তেজনা দেখা দেয়। তারা  যেকোন মূল্যে মন্ত্রীকে প্রতিহত করার ঘোষণা দেয়া নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেওয়ায় বিজয়নগর, সদর, আশুগঞ্জ ও সরাইল উপজেলায় রোববার সকাল ৬টা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন।
    তবে হরতাল ও ১৪৪ ধারা জারির মধ্যেই ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা মন্ত্রী ছায়েদুল হকের গাড়ি বিজয়নগরে ঢোকার সময় চান্দুরা এলাকায় মন্ত্রীকে লক্ষ্য করে জুতা প্রদর্শন করেন। এছাড়া বিজয়নগর চান্দুরা নামক স্হানে পিকেটারদের ছোড়া ইটের আঘাতে নবীনগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ আহমেদ আহত হন।এছাড়া মন্ত্রী উদ্ধোধন ও মত বিনিময় সভা শেষ করে এলাকা ত্যাগ করার পর পরপর ৩টি ককটেল এর  বিস্ফোরণ ঘটে।
    উল্লেখ্য যে, তবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীকে আমন্ত্রণ না জানানোয় গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে বিজয়নগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. তানভীর ভূঁইয়া ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া মন্ত্রী ছায়েদুল হকের অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা দেন। পরে এদিন বিকেলেই উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠন রোববার বিজয়নগরে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ঘোষণা দেন। এরপর শুক্রবার দুপুরে বিজয়নগর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে মারধর ও কার্যালয় ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা। এছাড়া দুর্বৃত্তরা মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রীর নামফলকও ভেঙে ফেলে।এ ব্যাপারে বিজয়নগর প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা: বজলুর রহমান বাদী হয়ে অজ্ঞাত  ১২০ জন আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেন।